৫টি পৃথিবীর ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি আর্থিক ক্ষতি করা ভূমিকম্প (Bhumikompo) যা আপনি জানেন না

জেনে নিন পৃথিবীর সবচেয়ে ব্যায়বহুল ৫টি ভূমিকম্পর বিষয়ে (Earthquake / Bhumikompo)

তোহোকু ভূমিকম্প সুনামি ২০১১ (Tōhoku earthquake and tsunami) –



By U.S. Marine Corps photo by Lance Cpl. EthanJohnson 

স্থান - জাপান
তীব্রতা - . (রিখটার স্কেল)
আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি - ২৩৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার

এই ভূমিকম্প (Bhumikompo) কে জাপানে গ্রেট ইস্ট জাপান ভূমিকম্প নামে ডাকা হয়| ১১ মার্চ ২০১১, শুক্রবার দুপুর ২টো বেজে ৪৬ মিনিটে তোহোকুর ২৯ কিলোমিটার গভীরে উৎপন্ন হয়| রিখটার স্কেলে এর তীব্রতা ছিল প্রায় .| রেকর্ড অনুযায়ী এটি জাপানের সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প পৃথিবীর চতুর্থ শক্তিশালী ভূমিকম্প| এর ফলে ৪০. মিটার (১৩৩ ফুট) উঁচু সুনামি উৎপন্ন হয় যা স্থলভাগএর ১০ কিমি দূরত্ব পর্যন্ত প্রবেশ করে|

এই ভূমিকম্পের পর জাপান অন্তত ১০০০ এর বেশি আফটারশক এর সম্মুখীন হয়েছে যার মধ্যে বেশ কিছুর তীব্রতা . থেকে . পর্যন্ত ছিল| এর থেকে উৎপন্ন শক্তির পরিমাপ ২০০৪ সালে ঘটে যাওয়া ভারত মহাসাগর এর ভূমিকম্প সুনামির প্রায় দ্বিগুন| এত বেশি পরিমান শক্তি দিয়ে আমেরিকার পুরো লস এঞ্জেলেস শহর টিকে এক বছর আলোকিত করে রাখা সম্ভব ছিল| এই ভূমিকম্প পৃথিবীর দৈনিক সময় . মাইক্রো সেকেন্ড কমিয়ে দিয়েছিলো|

জাপান ন্যাশনাল পুলিশ এজেন্সী এর তথ্য অনুযায়ী হতাহতের সংখ্যা ছিল ১৫৮৯৬| ৬১৫২ জন আহত ২৫৩৭ জন নিখোঁজ|

গ্রেট হাঁসিন ভূমিকম্প (১৯৯৫)-


By I, 松岡明芳, CC BY-SA 3.0


স্থান - জাপান

তীব্রতা - . (রিখটার স্কেল)

আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি - ২০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার


১৭ জানুয়ারির ১৯৯৫, জাপান এর হনশীন এর উত্তর প্রান্তে awaji দ্বীপ এর শহর কোবে থেকে ২০ কিমি দূরে ভূগর্ভের ১৭ কিমি গভীরে উৎপন্ন হয় এই ভূমিকম্প ও 8 লক্ষ বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়| শহরের বিভিন্ন এলাকাতে ৩০০ টির বেশি অগ্নিকান্ড সংঘটিত হয়| ভূমিকম্পের কম্পন প্রায় ২০ সেকেন্ড এর জন্যে স্থায়ী হয় এবং তার  আফটারশক পরে বেশ কয়েকদিন পর্যন্ত অনুভব করা গিয়েছিলো যার মধ্যে অন্তত ৭৪ টি আফটারশক যথেষ্ট শক্তিশালী ছিল|

সম্পূর্ণ দুর্ঘটনায় মোট ৬৪৩৪ জন মানুষ মারা যায় | ১৯২৩ সালের ভূমিকম্পের পর এটি জাপানের সবচেয়ে জঘন্য দুর্ঘটনা বলে মনে করা হয়|


সিচুয়ান ভূমিকম্প ২০০৮ -







স্থান - চীন

তীব্রতা - . (রিখটার স্কেল)

আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি - ৮৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার


চীনের চেন্দু অঞ্চলের ৮০ কিমি উত্তর পশ্চিমএ ভূগর্ভের ১৯কিমি গভীরে ১২ই মে ২০০৮ চীনএর সবচেয়ে আর্থিক ক্ষতিবহুল ভূমিকম্প উৎপন্ন হয়| ভূমিকম্পের পর বেশ কিছু মাস পর্যন্ত শক্তিশালী আফটারশক অনুভব করা গেছে| এই ভূমিকম্পের ফলে কমপক্ষে ২ লক্ষ ধস সৃষ্টি হয় যা কয়েক হাজার মানুষের মৃত্যুর কারণ |

জুলাই ২০০৮ পর্যন্ত ৬৯ হাজার এর বেশি মানুষ মারা যান আর ৩৭৪১৭৬ জন মানুষ আহত হন| মোট ১৮২২২ জন মানুষের নিখোঁজ হবার খবর নথিভুক্ত হয়েছিল এই ভূমিকম্পে | ৫০ লক্ষের বেশি মানুষ ঘরছাড়া হয়ে যান | বেসরকারি হিসেবে যা ১ কোটির বেশি| চাইনিজ গভর্নমেন্ট ত্রাণ ও পুনর্নির্মাণে ৪৪১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এর খরচ করেছিল যা এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি|



১৯৯৪ নর্থরীজ ভূমিকম্প-





By FEMA News Photo - This image is from the FEMA Photo Library., Public Domain


স্থান - লস এঞ্জেলেস, আমেরিকা

তীব্রতা - . (রিখটার স্কেল)

আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি - ১৩-৪৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার


১০-২০ সেকেন্ড এর এই ভূমিকম্প আমেরিকার সান ফার্নান্দো ভ্যালির রেসিদা এ উৎপন্ন হয়| যদিও ৫৭ জন মানুষ এই দুর্ঘটনাতে মারা গিয়েছিলেন তবুও আর্থিক ক্ষতির দিক থেকে এটা আমেরিকার সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক দুর্যোগ|


১৯৮০ ইরপিনিয়া ভূমিকম্প-


স্থান - ইতালি

তীব্রতা - . (রিখটার স্কেল)

আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি - ১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার


ইতালির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ভূমিকম্প ১৯৮০ সালের ২৩শে নভেম্বর ইতালির কোনজা গ্রামের থেকে উৎপন্ন হয় | রিপোর্ট অনুসারে ২৪৮৩ জন মানুষ মারা যান, ৭৭০০ জন আহত ও আড়াই লক্ষ মানুষ ঘরছাড়া হন | মূল কম্পনএর পরে মোট ৯০ বার কম্পন অনুভব করা গেছে যার মধ্যে তিনটি সবচেয়ে বড় কম্পন আলাদা আলাদা জায়গাতে ৮০ সেকেন্ড এর মধ্যে ঘটে|

ইতালির গভর্নমেন্ট ৫৯ ট্রিলিয়ন লিরা পুনর্নির্মাণের কাজে খরচ করে | যার ৩২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ওয়েস্ট জার্মানি ও ৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আমেরিকা ত্রাণ হিসাবে দিয়েছিলো|